বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০২ পূর্বাহ্ন

প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দুর্গাপূজা

হেলাল উদ্দিন ও এস এম শিমুল, বিশেষ প্রতিনিধি, সময়ের সংবাদঃ
  • Update Time : সোমবার ২৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪২০ বার পঠিত

হেলাল উদ্দিন ও এস এম শিমুলঃ

এক বছরের জন্য মা চলে যাচ্ছে! মা আগামী বছরে আবার আসুক, জগত সংসার শান্তিতে ভরে থাকুক, মা দুর্গার কাছে এই প্রার্থনা করতে দেখলাম হান্ডিয়াল পূজামন্ডবে এক সদ্য দম্পতি মিতুকে জিজ্ঞেস করলাম দুর্গা প্রতিমার কাছে ভক্তি করে কি চাইলা? প্রতি উত্তরে এ প্রতিনিধিকে জানান, মা দুর্গার কাছে প্রার্থনা-দেশ থেকে যেন মহামারী করোনা বিদায় হয়,আমার স্বামী সংসারে যেন সুঃখ থাকে।

অন্য দিকে মিছমেথুইর পূজা মন্ডবে দীপা দম্পতি কে মা দুর্গার পাশে ভক্তি করতে দেখলাম,ভক্তকে জিজ্ঞাসা করলাম মা দুর্গার কাছে কি চাইলা, বলল স্বামীর সংসার নিয়ে যেন সুখে শান্তিতে থাকতে পারি।

এদিকে করত-কান্দি পূজা মন্ডবে কামনা কে অশ্রুসিক্ত ভাবে মা দুর্গাকে সিঁদুর দিতে দেখলাম, জিজ্ঞাসা করতেই বিজয় দশমী তে মায়ের বিদায় ভক্তদের বিষাদের সুর পরিলক্ষিত হল।

ঘুরতে ঘুরতে উল্লাপাড়ার তেলিপাড়া পূজা মন্ডবে ঢুকতেই দেখা হল তেলিপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যানিকেতনের সহকারী প্রধান শিক্ষক পিয়াল সরকারের সাথে।সাংবাদিকদের দেখে অতি সম্মানের সাথে পূজা মন্ডবে নিয়ে গেলেন ভি,আই,পি আসনে বসিয়ে আপ্যায়ন করলেন। পূজা মন্ডব দেখে অভিভূত হলাম, দেখলাম মহাদেব ভৌমিক মাটির তৈরি চারু-কারু গেট দেখে অভিভূত হলাম। মহামারী করোনা উপলক্ষে গেটেই হাত ধোয়ার সুব্যবস্থা একেবারে ন্যাচারাল। গেটের ঠিক ডানপাশে ডিজিটাল লাইটিং সিস্টেম এর মাধ্যমে দুর্গা প্রতিমার ছবি প্রদর্শন। যতগুলো পূজামন্ডব ঘুরেছি তার মধ্যে তেলিপাড়া পূর্বপাড়া গোয়ালবাড়ি পূজা মন্ডবটি সবচেয়ে জাঁকজমক পূর্ণ বলে মনে হয়েছে। প্রধান শিক্ষক মধুসূদন সরকার, পিয়াল সরকার, মহাদেব ভৌমিক, তবলা কার সুজিত সরকার,বন্ধুবর গঙ্গা সরকার সবাইকে পূজা মন্ডবে এক সাথে তাল মিলিয়ে নিত্য পরিবেশন করতে দেখলাম। উল্লাপাড়ার প্রত্যন্ত অঞ্চল তেলিপাড়ায় গোয়ালবাড়ি পূজামন্ডব শ্রেষ্ঠ বলে মনে হল। দেখতে দেখতে চলে এলাম তেলীপাড়া পশ্চিমপাড়া কালী মন্দিরের পিছনে দীপক দার পাশের বাড়ির পূজা মন্ডবে। দেখলাম, মহাদেবের উপস্থাপনায় ডিজিটাল নিত্য পরিবেশন। রতন মাস্টারের পূজামন্ডব পরিদর্শন শেষে চলে এলাম নওগাঁ পূজা মন্ডবে। চোখে পড়লো বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের। এই পূজা মন্ডবের প্রধান আকর্ষণ ছিল আদিবাসীদের আঞ্চলিক নৃত্য। অবশেষে বিজয়-দশমী ঢাকের তালে, নৃত্যের ছন্দে ধূপের ধোঁয়া ও সিঁদুর খেলার মধ্য দিয়ে মায়ের বিদায় ভক্তদের বিষাদের সুর বেলা ২ টার দিক বিভিন্ন পূজা মন্ডপ থেকে নওগাঁ শংকদোঁহে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে প্রতিমা বিসর্জন হয়।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..