বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন

শিক্ষার্থীরা এখন মোবাইলের গেম খেলায় ব্যস্ত

মনিরুজ্জামান, স্টাফ রিপোর্টার, যশোরঃ
  • Update Time : রবিবার ২৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৮৫ বার পঠিত

মনিরুজ্জামান, স্টাফ রিপোর্টার, যশোরঃ

প্রায় আট মাস স্কুল-কলেজ বন্ধ রয়েছে। গত ১৮ মার্চ থেকে করোনাভাইরাস এর কারণে বন্ধ হয়ে যায় সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। খুব আনন্দে দিন কাটছে ছেলে ও মেয়েদের। কারণ ছোটবেলায় স্কুলে যাওয়া খুবই কষ্টের কাজ।

আনন্দে থাকতে থাকতে তারা ভুলেই গেছে বই, কলম ও টেবিলের কথা। এখন তারা মেতে উঠেছে মোবাইলের গেমে। তারা স্কুলের বারান্দায়, দোকানে, রাস্তার পাশে এবং বিভিন্ন জায়গায় মোবাইলে ফ্রি ফায়ার গেম, লুডু, কেরাম, তাস খেলায় জমজমাট আড্ডা জমাচ্ছে।

যারা দেশ ও জাতির ভবিষ্যৎ। তারা এখন অনেকটাই নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। প্রয়োজন এখন সচেতন অভিভাবকের। তাদের এখন আর সন্ধ্যায় লেখা পড়ার অভ্যাস নাই। সকালেও লেখাপড়ার অভ্যাস নাই। তারা ভুলেই গেছে লেখাপড়ার কথা। সন্ধ্যা হলে দোকানে ও রাস্তার মোড়ে আড্ডা।

শুধুই কি অভিভাবক বাবা-মা? না, সমাজের সচেতন মানুষেরাও। এখন আমাদের নৈতিক দায়িত্ব হলো সকল শিশুদের দেখে রাখা।মা-বাবা ও ভুলে গেছে সন্তানকে পড়ার টেবিলে বসার কথা বলতে। এভাবে চললে অনেক শিশুরা লেখাপড়া থেকে ঝরে যেতে পারে।

“অভিভাবক আসাদুজ্জামান বলেন,ছেলেমেয়েরা এখন তো পড়ালেখা করেই না। বরং সারা দিন খেলাধুলায় ব্যাস্ত। তবে এখন প্রতি রবিবার স্কুলে যাওয়ার কারণে একটু পরিবর্তন হয়েছে। তবে আমাদের উচিত ছেলেমেয়েদেরকে সন্ধ্যা এবং সকালে পড়ালেখা করানো।

“শিক্ষক এনামুল বলেন, নোবেল করোনাভাইরাসের কারণে সারাদেশে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায়। ছেলেমেয়েরা লেখাপড়ার কথা ভুলে গেছে। তবে এখানে অভিভাবকদের সচেতন হওয়া প্রয়োজন। আমরা অবশ্য প্রধান শিক্ষকের নির্দেশনায়। অভিভাবকের কাছে ফোন দিয়ে খোঁজ খবর নেই। তবে মোবাইলের গেমে ছেলেমেয়েদের অনেক ক্ষতি করতে পারে। এখনই সচেতন হওয়া দরকার।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..