বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১২:৪৩ অপরাহ্ন

ধুনটে স্ত্রীকে জবাই করলেন পাষণ্ড স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • Update Time : রবিবার ১১ অক্টোবর, ২০২০
  • ২০৪ বার পঠিত

মোঃ হেলাল উদ্দিন সরকার, ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ

দিবাগত রাত্রি আনুমানিক এক ঘটিকার সময় ধুনট উপজেলার চৌকিবাড়ী ইউনিয়নের সরোয়া পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত হারান আকন্দের ছেলে এশার আলী (৫০) তার স্ত্রী শেফালী খাতুন (৪২) কে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়।ভোরে তার ছেলে ও প্রতিবেশীরা ঘরের মেঝেতে গলাকাটা লাশ দেখতে পেয়ে এলাকাবাসী এবং থানা পুলিশকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে ধুনট থানা অফিসার ইনচার্জ কৃপা সিন্ধু বালা, ইন্সপেক্টর তদন্ত কামরুজ্জামান সংগীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশের ছুরুত হাল রিপোর্ট তৈরি করেন ইতিমধ্যেই বগুড়ার এডিশনাল এস পি মো:গাজিউর রহমান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

জনাব গাজিউর রহমান উক্ত ঘটনা পর্যবেক্ষন করেন ও লাশের ছুরুত হাল দেখেন ইতিমধ্যেই খবর পাওয়া যায় হত্যাকারী এশার আলী চান্দাইকোনা বাজারে জনতার হাতে আটক হয়েছেন।খবর পেয়ে ও সি কৃপা সিন্ধু বালা ও এস আই প্রদিপ কুমার বর্মণ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে হত্যাকারী এশারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

ধুনট থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

পরিবার সূত্রে জানাযায় প্রায় ত্রিশ বছর পূর্বে পার্শ্ববর্তী কাশিয়াহাটা গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের মেয়ে শেফালী খাতুনের সাথে হত্যাকারি এশারের বিয়ে হয়।শেফালী খাতুন দীর্ঘদিন যাবত নানা রোগে ভুগতে ছিলেন। স্বামী এশার একজন দিনমজুর অভাব অনটনের সংসার ছিল তাদের। অভাব অনাটনের কারনে স্বামী স্ত্রীর মাঝেমধ্যেই কথা কাটা কাটি হতো বলে বড় ছেলে সেলিম জানায়।

তাদের দুই ছেলে এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। তার মধ্যো এক ছেলে ও এক মেয়ে বিয়ে দিয়েছেন। হত্যার কারন এখনও জানা যায়নি এ খবর লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান জানান, অভিযুক্ত আসামি শেরপুর উপজেলার সিমাবাড়ী ইউনিয়নের চান্দাইকোনা বাজার থেকে আটক করা হয়েছে জিজ্ঞাসা শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..