শনিবার, ০২ Jul ২০২২, ০৩:১৭ অপরাহ্ন

News Headline :
তাড়াশে দলিলকৃত জায়গা জোরপূর্বক দখল করার অভিযোগ পদ্মা সেতু দেখতে গেছেন স্বামী, বউ-শাশুড়িকে প্রেমিকের সঙ্গে ধরলেন জনতা প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে তাড়াশে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে তাড়াশে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ তাড়াশে আওয়ামীলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত তাড়াশে মাদক সেবন করে মাতাল অবস্থায় ছাত্রদলের নেতা আটক তাড়াশে আওয়ামীলীগের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত অসুস্থ তফেরের পাশে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খাঁন সারাদেশে বিএনপির অরাজকতার সৃষ্টির প্রতিবাদে তাড়াশে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল

টেলিভিশন পর্দায় আসছে আলোচিত ডকুড্রামা ‘হাসিনা: এ ডটারস টেল’

সময়ের সংবাদ ডেস্কঃ
  • Update Time : শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২৭৩ বার পঠিত

টেলিভিশন পর্দায় আসছে আলোচিত ডকুড্রামা ‘হাসিনা: এ ডটারস টেল’। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ এ আয়োজন।

সোমবার প্রদর্শিত হবে বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ দেশের ১০টি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে। বিটিভিতে প্রদর্শিত হবে ২৮ সেপ্টেম্বর দুপুর ৩টায়।

একইদিন দুপুর ১২টায় একুশে টিভি এবং দুপুর ৩টায় একাত্তর টিভি ও চ্যানেল আই ডকুড্রামাটি প্রদর্শন করবে।

এ ছাড়া গাজী টেলিভিশন দুপুর ৩টা ৫০ মিনিটে, ডিবিসি বিকেল সাড়ে ৪টায়, সময় টিভি বিকেল ৫টায়, দেশ টিভি সাড়ে ৫টায়, বাংলা টিভি রাত ৮টা ৫০ মিনিটে, বিজয় টিভি রাত সাড়ে ৯টায় ও মাছরাঙা রাত ১১টায় সম্প্রচার করবে।

বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কৌতূহল আছে সবার। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর কীভাবে তিনি বেঁচে ছিলেন সেই ইতিহাস অনেকের কাছেই অজানা। তার আগে-পরের ইতিহাস নিয়ে ‘হাসিনা: এ ডটারস টেল’।

পরিচালক পিপলু খান বলেন, এই ডকুড্রামায় একজন শেখ হাসিনা তার রান্নাঘর থেকে শুরু করে সরকারপ্রধানের দায়িত্ব পালন, বেঁচে থাকার সংগ্রামসহ ব্যক্তিগত, পারিবারিক, রাজনৈতিক জীবনের নানা দিক ফুটে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার ছোট বোন শেখ রেহানার জীবনের কথাও উঠে এসেছে এতে।

স্টার সিনেপ্লেক্সে ২০১৮ সালের ১৫ নভেম্বর প্রিমিয়ার শোর মাধ্যমে যাত্রা করে ‘হাসিনা: এ ডটারস টেল’। এর পর প্রদর্শিত হয় স্টার সিনেপ্লেক্স, ব্লকবাস্টার সিনেমাস, মধুমিতা সিনেমা হল ও সিলভার স্ক্রিনে।

দর্শক চাহিদার কথা মাথায় রেখে পরবর্তীতে সারা দেশের জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের আরও ৩৫টি সিনেমা হলে মুক্তি পায়।

চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছে সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন। প্রযোজক রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ও নসরুল হামিদ বিপু।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..