সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:০৭ অপরাহ্ন

News Headline :

হরিরামপুরে বন্যায় মৎস চাষীদের ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২ কোটি ১২ লক্ষ

সাগর হোসেন রনি, হরিরামপুর প্রতিনিধি:
  • Update Time : রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১২১ বার পঠিত

মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে আকস্মিক বন্যায় উপজেলার মৎস চাষীদের ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ২ কোটি ১২ লক্ষ টাকা।
উপজেলার মৎস অফিস সূত্রে জানা যায়, এবারের বন্যায় উপজেলার ২২৯টি পুকুর ভেসে যায়। যার আয়তন ৩৩.২৬ হেক্টর। ভেসে যাওয়া মাছের পরিমাণ প্রায় ১০৩.৭৬ মে.টন। যার বাজার মূল্য আনুমানিক ১ কোটি ৭২ লক্ষ টাকা।

এছাড়াও ভেসে যায় ৯ লক্ষ পোনা মাছ। যার বাজার মূল্য আনুমানিক ১৩,২২,০০০ টাকা। আরও জানা যায়, বন্যায় পুকুরের পাড়সহ অবকাঠামো ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২০ লক্ষ টাকা। এতে দেখা যায় সবমিলিয়ে মৎস চাষীরা প্রায় ২ কোটি ১২লক্ষ টাকা ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে দিশেহারা পড়েছে।

বন্যা উত্তোরাত্তর মাছের অভয়ারণ্য উপজেলার বিভিন্ন বিল বাওর থেকে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জেলেরা পোনা মাছ নিধন করে চলছে দিনের পর দিন।

এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস কর্মকর্তা মো. সাইফুর রহমান বলেন, সরকারিভাবে ১ জুলাই থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৯ ইঞ্চির নিচে রুই জাতীয় পোনা মাছ ধরা বা বিক্রি করা সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ। এ পর্যন্ত ১০টি অভিযান চালিয়ে ও ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৬ জনকে ২৮০০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়াও নয়ারহাটে অভিযান চালিয়ে ৩৪ বস্তা কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন হাটবাজার থেকে এ পর্যন্ত ৫ মণের অধিক পোনা মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত ৪ মণের বেশি মাছ উপজেলার বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসায় দেয়া হয় এবং বাকি পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, বর্তমান উপজেলার মাছের অভয়ারণ্য হিসেবে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো দিয়ার বিল, শৌলকোটার বিল, গোপীনাথপুরের বিল, বাথছালার বিল। এই সকল বিলে যেন জেলেরা বেড় জাল দিয়ে মাছ ধরতে না পারে, আমরা তার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

প্রয়োজনে এই সকল স্থানে গ্রাম পুলিশ মোতায়েনের প্রস্তাব করেছি। আসলে আমাদের জনবল কম হওয়ায় অভিযানেও কিছুটা ব্যহত হচ্ছ। তাই রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি এবং সাধারণ মানুষের সহযোগিতা পেলে পোনা মাছ নিধন কার্যক্রম অনেকটা সহজতর হবে।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..