মঙ্গলবার, ০৫ Jul ২০২২, ০৩:০৫ পূর্বাহ্ন

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসবের পুণ্যলগ্ন, শুভ মহালয়া আজ।

সময়ের সংবাদ ডেস্ক
  • Update Time : বৃহস্পতিবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৫৮৩ বার পঠিত

মোঃ ওয়াশিম রাজ, নওগাঁ; হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসবের পুণ্যলগ্ন, শুভ মহালয়া আজ (বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর)। অর্থাৎ, এদিন থেকেই দেবীপক্ষের শুরু।

শ্রীশ্রী চণ্ডীপাঠের মধ্যদিয়ে দেবী দুর্গার আবাহনই মহালয়া হিসেবে পরিচিত। আর এই “চণ্ডী”তেই আছে দেবী দুর্গার সৃষ্টির বর্ণনা ও দেবীর প্রশস্তি। শারদীয় দুর্গাপূজার একটি গুরুত্বপর্ণ অনুষঙ্গ হলো এই মহালয়া।

তবে এই বছরের পুজো অন্যান্য বছরের মত নয়। করোনাভাইরাসের আতঙ্কের আবহেই এবার দেবীপক্ষের সূচনা হলো। আর মহামারির দুর্যোগ মাথায় নিয়েই এবার হবে মাতৃবন্দনা।

পুরাণমতে, এদিন দেবী দুর্গার আবির্ভাব ঘটে। এদিন থেকেই দুর্গাপূজার দিন গণনা শুরু হয়। মহালয়া মানেই আর ৬ দিনের প্রতীক্ষা মায়ের পূজার। আর এই দিনেই দেবীর চক্ষুদান করা হয় । মহালয়া থেকে দুর্গাপূজার আগমন ধ্বনি শুনতে পাওয়া গেলেও এবার ৬ দিন পরে পুজা হবে না। আশ্বিন মাস মল (মলিন) মাস হওয়ার কারণে এবার দুর্গাপুজা শুরু হবে প্রায় একমাস পর ২১ অক্টোবর থেকে।

আজ ভোর ৫টা ৩০ মিনিটে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে মহালয়ার বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি। দেশের অন্যান্য মন্দিরেও এ উপলক্ষ্যে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের কারণে এবারের আয়োজনে বেশকিছু ভিন্নতা আছে।
দেবী দুর্গার আগমনী উপলক্ষ্যে দিনটি উযাপন করতে ভোর সাড়ে পাঁচটায় দেবীবরণের আয়োজন করেছে সর্বজনীন পূজা পরিষদ।

মহিষাসুরমর্দিনী দেবী দুর্গা সমস্ত অশুভ শক্তি বিনাশের প্রতীক রূপে পূজিত। মহামায়া অসীম শক্তির উৎস। পুরাণ মতে, মহালয়ার দিনে দেবী দুর্গা মহিষাসুর বধের দায়িত্ব পান। শিবের বর অনুযায়ী কোন মানুষ বা দেবতা কখনও মহিষাসুরকে হত্যা করতে পারবে না। ফলত অসীম হ্মমতাশালী মহিষাসুর দেবতাদের স্বর্গ থেকে বিতারিত করে এবং বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ডের অধীশ্বর হতে চায়।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..