সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:০৭ অপরাহ্ন

News Headline :

হরিরামপুরে বিশ্বমানের ফুল ও ফলের নার্সারী

আবিদ হাসান ,মানিকগঞ্জ:
  • Update Time : সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৩৮ বার পঠিত

মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুর উপজেলায় বিভিন্ন প্রজাতির বিশ্বমানের ফুল ও ফলের বাগান করলেন তরুণ এক উদ্দোক্তা।

উপজেলার বলড়া ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামের নিজ বাড়িতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংলিশে মাস্টার্স করা তরুণ উদ্দোক্তা তানভির আহমেদ গড়ে তুলেছেন তার এই বিশ্বমানের ফুল ও ফলের বাগান।

এ বাগানে রয়েছে আমেরিকা, চায়না, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া ও ভারত সহ বিশ্বের ২৫টি দেশের ৫শতাধিক পদ্ম, জলজ ফুল ও ফল গাছের সমারোহ।
বাগান মালিক সূত্রে জানা যায়, বাগান টিতে আছে এঞ্জেল ট্রাম্পেট, গ্লিরিসিডিয়া, কানাইডিংগা, ক্যানাঙ্গা, বিভিন্ন রঙ এর দোলন চাঁপা,ডম্বিয়া,স্থল পদ্ম, জল গোলাপ, নীল মনি,শ্বেত মনি, গোলাপি সহস্র বেলি,পার্সিয়ান জুঁই, সরস্বতী চাঁপা, ব্ল্যাক প্রিন্সেস, হাজার পাপড়ির Thousands petals পদ্ম, আফ্রিকান বাওবাব, হলুদ শিমুল, রাজ অশোক সহ ৫০০ প্রজাতির দূর্লভ গাছ।
যার মধ্যে বিদেশি ১০৭ প্রজাতির শাপলা, ৫৬টি প্রজাতির পদ্ম, ২০টি অন্যান্য জলজ, ১শতাধিকের অধিক প্রজাতির জবা, ৪০ প্রজাতির সুগন্ধি, ৫০প্রজাতির লতানো, ৫০প্রজাতির ফল গাছ, ২০প্রজাতির ইন্ডোর, ২০প্রজাতির বনজ ও বিদেশি আরো ৫০ প্রজাতির অন্যান্য গাছ। এছাড়া এই বন্যায় দেড় শতাধিক প্রজাতির জবা গাছ মারা গেছে ও, অর্ধশতাধিক দেশীয় গাছ রয়েছে তার বাগানে।

এবিষয়ে বাগান মালিক ও তরুণ উদ্দোক্তা তানভির আহমেদ বলেন, ফুল ও ফল গাছ অপরিসীম আনন্দ দেয় তাকে। তাই তিনি বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষাজীবন শেষ করেও চাকুরির পেছনে না ছুটে জীবিকা নির্বাহে বেছে নিয়েছেন বাগান করার উদ্যোগ। তারই ধারাবাহিকতায় এই বাগানটিতে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ফুল ও ফল গাছের সমারোহ রয়েছে।
তিনি দাবী করে বলেন যে তার বাগানে এমন কিছু গাছ আছে, যেগুলা তার হাত ধরেই এ দেশে প্রথম এসেছে এবং কিছু গাছের নাম ও তিনিই করেছেন। যেমন জল গোলাপ। গাছ টি জলে হয়। ফুল টা খুব সুন্দর সাদা গোলাপের মত। তাই তিনি বিদঘুটে ইংরেজি নাম না দিয়ে নাম রাখেন ” জল গোলাপ” এই নামেই দেশ ব্যাপি পরিচিত। এছাড়াও তার বাগানে ফোটে “ব্ল্যাক প্রিন্সেস” নামে গাঢ় খয়েরি শাপলা। সেটাও তার নিজের উদ্ভাবিত শাপলার একটা প্রজাতি। এদিকে তার বাগানের মূল আকর্ষণ হাজার পাপড়ির Thousands petals পদ্ম। যে ফুলটাতে ১হাজার টা পাপড়ি হয় বলেও জানান তিনি।

এবিষয়ে মুঠোফোনে জানতে চাইলে হরিরামপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল গফফার জানান, হরিরামপুরে নার্সারী অনেক আছে, কিন্ত এ রকম শুধু ফুলের নার্সারী হরিরামপুরে নেই। তাই তিনি নিয়মিত এটির খোঁজ খবর রাখছেন। এই উদ্দোক্তা সহ অন্য কেউ যদি সহযোগিতা চায়, তবে অবশ্যই তাকে সহযোগিতা করবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা। এছাড়া একজন শিক্ষিত তরুণ উদ্দোক্তা হিসেবে তানভির’কে সাধুবাদ জানিয়েছেন তিনি।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..