শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫২ অপরাহ্ন

নদীরক্ষা বাঁধ পরিদর্শন ও বৃক্ষরোপণ করেছেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব

সময়ের সংবাদ ডেস্ক
  • Update Time : শনিবার ২৯ আগস্ট, ২০২০
  • ১২২ বার পঠিত

তারিক হোসেন , চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ

বাংলাদেশ নদী মার্তৃক দেশ। সুদুর চীন ও ভারত মহাদেশের উজান থেকে অতিমাত্রায় পানি প্রবাহিত হওয়ার ফলে প্রতি বছর বন্যায় কবলিত হয় এদেশ। অধিক পরিমাণ বর্ষণের ফলে নদীর জলধারা বৃদ্ধি হওয়ার ও একটি কারণ। প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায়ই প্রকৃতিকেই ব্যবহার করতে হবে বলে জানান, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার।

শনিবার (২৯ আগস্ট) সকালে রাজশাহীর শহর রক্ষা টি-বাঁধ, বাঘা ও চারঘাট উপজেলার বিভিন্ন নদীর উপকুল ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা এবং রাজশাহী ক্যাডেট কলেজ সংলগ্ন নদী রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করেছেন সিনিয়র সচিব। ওই সময় তিনি বিভিন্ন জাতের গাছের চারা রোপন করেন। উক্ত কর্মসূচীতে আরসিসি ক্যাডেট কলেজ অধ্যক্ষ, বাঘা উপজেলা ইউএনও শাহিন রেজা, চারঘাট উপজেলা ইউএনও সৈয়দা সামিরা সহ বিভিন্ন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

বৃক্ষরোপণ কর্মসূচীতে সাংবাদিকদের প্রশ্ন উত্তরে তিনি বলেন, ভারতের ৫৪টি নদীর সীমানা আছে। তার মধ্যে ২৪ টি উপজেলায় নদীর সীমানার কাজ চলমান আছে। নদীর নাব্যতা ঠিক রাখতে ডেজিং করে ইকো পদ্ধতিতে নদী ভাঙ্গন মোকাবেলা করতে হবে। নদীর তীরবর্তী যে সকল এলকার বেশি ক্ষতি গ্রস্থ সেখানে স্থায়ী সমাধানের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সর্বপরি ডেজিং এর মাধ্যমে নদী গভিরতা বৃদ্ধি করতে হবে। নদী থেকে উত্তোলনকৃত মাটি তীরবর্তী এলাকার সীমানায় ফেলে সমতল ভুমির পরিমান বৃদ্ধি করা সম্ভব। প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবেলাই পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে সারা দেশে ১০ লক্ষ গাছের চারা রোপন কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। যার ফলে বিভিন্ন বন্য ও জলজ প্রানীও তাদের আবাসস্থান খুজে পাবে। অপরদিকে নদী ভাঙ্গন রোধ করা সম্ভব হবে বলে জানান, পানি সম্পদ মন্ত্রাণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..