রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ১২:০৩ অপরাহ্ন

News Headline :
সারাদেশে বিএনপির অরাজকতার সৃষ্টির প্রতিবাদে তাড়াশে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল তাড়াশে শেয়াল মারার ফাঁদে শিশুর মৃত্যু তাড়াশে পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি হলেন রজত ও সাধারণ সম্পাদক আনন্দ ঘোষ তাড়াশে উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হলেন মিনি ও সাধারণ সম্পাদক টুনি তাড়াশে ছাত্র অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক কমিটি অনুমোদন তাড়াশে মরা মানুষের টাকাসহ ৪ শিক্ষকের বেতন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ মাদ্রাসার ২ জন সুপারের বিরুদ্ধে তাড়াশে ধান কাটার শ্রমিকের সংকট তাড়াশে কৃষি শ্রমিকদের মারধর, ৮ জন আহত তাড়াশে শিশু কন্যা আটকে রেখে মাকে নির্যাতন, থানায় অভিযোগ তাড়াশে খেলার মাঠের জন্য মানববন্ধন

টঙ্গীতে ভাইস্তা ফারুকের ছিনতাই, ডাকাতি, চুরি ও মাদক ব্যবসা

আব্দুল খালেক সুমন:(গাজীপুর প্রতিনিধি):
  • Update Time : সোমবার ২৪ আগস্ট, ২০২০
  • ৩০০ বার পঠিত

সেই কুখ্যাত ছিনতাইকারী ও মাদক ব্যবসায়ী এবং তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী মোঃ ফারুক ওরফে (ভাইস্তা ফারুক) যার নেতৃত্বে টঙ্গীর বিভিন্ন এলাকায় মাদক ব্যবসা ছিনতাই ডাকাতি চুরির মত আরো জঘন্য কাজে লিপ্ত আছেন।

সে এক সময়ে ডিবি পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করতো, সারাদিন ডিবি অফিসার দের সাথে ডিউটি শেষে সন্ধ্যার সময়ে গাড়ি থেকে নেমে সে তার সহযোগী তিন-চারজন বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে নিজেই একটি ডিবির টিম তৈরি করে। এলাকার বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে ডিবি প্রশাসনের ভয়-ভীতি দেখিয়ে টাকা পয়সা আদায় করত, যদি কেউ টাকা দিতে অস্বিকার যেত তাহলে পরের দিনই তাকে আইনের চোখে ধুলো দিয়ে গ্রেফতার করিয়ে দিত।

কে এই ভাইস্তা ফারুক।
সে প্রথম প্রথম হকের মোড় অবদার ড্রেন দিয়ে পানির সাথে যে তেল বের হতো সে তেল ড্রেন থেকে উঠিয়ে বাজারে বিক্রি করে নেশার টাকা যোগাত। রাতের বেলা তেল উঠাতে উঠাতে ড্রেনের নিচে গ্রিল কেটে ভিতরে প্রবেশ করে তামা চুরি করা থেকে শুরু করে তেলের টাংকি লীগ করে দিয়ে তেল বের করত। সেইসাথে শুরু করে ছিনতাই ডাকাতি চুরি।

শুধু তাই নয় আজ থেকে এক থেকে দেড় বছর আগে ৪৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জনাব মোঃ নূরুল ইসলাম নূরুর অফিস পিয়ন মোঃ রাজন দত্তপাড়া থেকে রিকশা করে অফিসে যাবার পথে কলাবাগান ব্রীজের উপরে রাজনের রিকশা থামায় (ভাইস্তা ফারুক) থামিয়ে বলে রাজন তোর ব্যাগে কি, রাজন বলে কাউন্সিলর সাহেবের বাসায় নিয়ে যাচ্ছি আম। তখন ভাইস্তা ফারুক রাজনের ব্যাগ থেকে জোরপূর্বক ভাবে কিছু আম ছিনিয়ে নিতে চাইলে রাজন বারণ করে বলে আমে হাত দিবে না, এই কথা শোনার সাথে সাথে ভাইস্তা ফারুক বলে হাত দিলে কি করবি বলেই কোমর থেকে দাঁড়ানো দেশীয় অস্ত্র বের করে রাজনের হাতে মধ্যে এলোপাতাড়ি কোপ মারে সঙ্গে সঙ্গে রক্তে লাল হয়ে যায়, এলাকার মানুষ এই ঘটনা দেখে হাতেনাতে ভাইস্তা ফারুককে ধরে কাউন্সিলরের অফিসের নিয়ে যায়, কাউন্সিলর সাহেব টঙ্গী পূর্ব থানা ফোন করলে এসআই শাহিন সাহেব আসেন। কাউন্সিলর ও এলাকার জনগণের সম্মুখে এসআই শাহিন সাহেবের হাতে ভাইস্তা ফারুককে ধারালো অস্ত্র সহকারে তুলে দেন। কিন্তু এলাকার জনগণ পরের দিনই ভাইস্তা ফারুককে এলাকায় চলাফেরা করতে দেখি সঙ্গে সঙ্গে থানায় যোগাযোগ করলে জানতে পারে ভাইস্তা ফারুক নাকি থানা থেকে পালিয়ে গেছে।

বেশ কিছুদিন নীরবই ছিল যতদিন ভাইস্তা ফারুক ছিল না, সে আবার এসেছে হরদম মাদক ব্যবসা ছিনতাই চুরি চলছে এলাকার মানুষ তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে গেছে। তার অত্যাচারের কারনে এলাকার জনগণ টঙ্গী পূর্ব থানা মোঃ ফারুক ওরফে ভাইস্তা ফারুকের নামে অভিযোগ করেন।

টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি মোঃ আমিনুল ইসলাম সাহেব এসআই নুরে আলম ও জালাল সাহেবকে নির্দেশ দেন মোঃ ফারুক ওরফে (ভাইস্তা ফারুক) কে গ্রেফতার করার জন্য। আসামির বাসায় অভিযান চালিয়ে বাসা থেকে তল্লাশি করে ৩ পিস ককটেল বোমা ও ধারালো দেশি অস্ত্র উদ্ধার করে টঙ্গী পূর্ব থানার পুলিশ। উদ্ধার চলার সময় আসামিকে বাসায় পাওয়া যায়নি।

টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি মোঃ আমিনুল ইসলাম সাহেব এলাকার সকলের উদ্দেশ্য করে বলেছেন এই কুখ্যাত সন্ত্রাসী কে দেখামাত্র টঙ্গী পূর্ব থানা জানানোর জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করেছেন।
আপনার তথ্য ও পরিচয় সম্পূর্ণ গোপন থাকবে।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..