মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৭ অপরাহ্ন

হরিরামপুরে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা

আবিদ হাসান,হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি:
  • Update Time : সোমবার ১০ আগস্ট, ২০২০
  • ১২৯৫ বার পঠিত

মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। রোববার উপজেলার বয়রা ইউনিয়নের দড়িকান্দি গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেন সুমি বেগম (২৫) নামের ওই গৃহবধূ। সুমি বেগম দড়িকান্দি গ্রামের জলিলের স্ত্রী।

এলাকাবাসীসূত্রে জানা যায়, মাঝে মধ্যেই প্রতিবেশি সখিনা বেগমের সাথে ওই গৃহবধুর ঝগড়া হতো। রোববার সকালেও তাদের সাথে মুরগি পালন নিয়ে ঝগড়া হয়। সখিনা বেগম অকথ্য ভাষায় সুমি বেগম কে গালমন্দ করেন।

ঝগড়ার একপর্যায়ে স্বামী এসে স্ত্রীর সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে । ঝগড়ার একপর্যায়ে স্বামী রাগ করে ঢাকার উদ্দেেশ্য রওয়ানা দেন।
সখিনা বেগমের অকথ্য ভাষায় গালাগালি এবং স্বামীর সাথে অভিমান করে নিজ ঘড়ের দরজা আটকিয়ে ওড়না পেচিয়ে সুমি বেগম আত্নহত্যা করে। এলাকাবাসী সুমি বেগমকে হরিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমিকে মৃত ঘোষনা করেন।

প্রতিবেশি সফিকুল জানান- মাঝে মাঝেই ওই গৃহবধু আর সখিনা বেগমের মধ্যে ঝগড়া হতো, ঘটনার দিন সকালেও সখিনা এবং সুমি বেগমের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।
কথা কাটাকাটির পর জলিল বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। এক পর্যায়ে কিছুক্ষন পর সুমি বেগমের কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে জানালা দিয়ে উকি দিয়ে দেখেন যে সুমি বেগমের গলায় ওড়না পেচানো অবস্থায় ঝুলে আছে। সফিকুলের চিৎকারে এলাকার বেশ কয়েকজন মিলে সুমি বেগমের ঝুলন্ত দেহ নামানো হয়।

গৃহবধূর স্বামী জলিল মিয়া জানান,প্রতিনিয়ত পাশের বাড়ির সখিনা বেগমের সাথে ঝগড়া হতো। গতকালও ঝগড়া হয়। ঝগড়ার একপর্যায়ে তিনি এসে তার স্ত্রীর সাথে রাগারাগি করেন। পরে তিনি ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। পাটগ্রাম মোড়ে আসতে না আসতেই বাড়ি থেকে ফোন পান বলেও তিনি জানান।

হরিরামপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মূঈদ চৌধুরী জানান, অপমৃত্যু মামলা হয়েছে তবে আত্মহত্যার বিষয়ে কেউ কোন অভিযোগ করেননি।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..