সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:১৬ অপরাহ্ন

News Headline :
তাড়াশে সদ্য যোগদানকৃত শিক্ষা অফিসার ও নিয়োগপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের বরণ অনুষ্ঠান তাড়াশে ২ হাজার শীতার্তদের মাঝে এমপি আজিজের কম্বল বিতরণ বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে রাতে বিয়ে বাড়িতে ইউএনও তাড়াশে ৭০লিটার দেশীয় চোলাই মদসহ একজন আটক তাড়াশে শিক্ষার্থীদের রাস্তায় সুরক্ষার জন্য স্পিড ব্রেকার দিলেন ছাত্রলীগ তাড়াশে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে ব্যানারে বঙ্গবন্ধুর ছবি না থাকায় অনুষ্ঠানে আসেননি চেয়ারম্যান ফেসবুকে মিথ্যা অপপ্রচার করায় প্রতিবাদ ২৬ দিনেও তদন্ত শেষ হয়নি, উদ্ধার হয়নি আট লক্ষাধিক টাকার ওষুধ তাড়াশে এক দিনের ব্যবধানে আরেকজন স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করার লক্ষ্যে তাড়াশে যৌথ কর্মীসভা

প্রত্যেক সংবাদকর্মী কি তা যথার্থভাবে করতে পারছেন?

সময়ের সংবাদ ডেস্ক
  • Update Time : রবিবার ২৪ মে, ২০২০
  • ১৮০ বার পঠিত

এম এ করিম ষ্টাফ রিপোর্টারঃ

বর্তমান সময়ে সারাদেশে মিডিয়ার যেন জয়জয়কার। পিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সংখ্যা বাড়ানোর সাথে সাথে বেড়েছে মিডিয়া কর্মীর সংখ্যাও।শুধু তাই নয়,রীতিমতো এটি এখন ক্রেজি ও প্রতিযোগিতার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এসব মিডিয়ার সংবাদ কর্মীরা দাবী করেন,তারা দেশ ও সমাজের উন্নয়নের জন্য কাজ করেন।তবে প্রত্যেক সংবাদকর্মী কি তা যথার্থভাবে করতে পারছেন? মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা তাদের গণমাধ্যমে সমাজের নানান সমস্যা,অসঙ্গতি, অন্যায়,দুর্নীতি অার অনিয়মের চিত্র তুলে ধরে এগুলো প্রতিকারের জন্য ভূমিকা রিখছেন। কিন্তু তাদের ভিতরকার নানা অসঙ্গতি তুলে ধরবেন কে? এছাড়াও,মিডিয়া সম্পাদক সহ সংশ্লিষ্ট জাতির কাছে প্রশ্ন থেকেই যায়, গণমাধ্যম কর্মীরা সমাজের বিভিন্ন সেবা মূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরলেও নিজের কর্মকাণ্ড তুলে ধরবে কে? শ্রদ্ধেয় বড় ভাই সিনিয়র প্রবীণ অবসরপ্রাপ্ত সাংবাদিক ছদ্ম নাম শেখ হাসিব তিনি বলেছিলেন,তোমরা সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের ভালো-মন্দ সব খবর সমাজের সামনে তুলে ধরছ,কিন্তু তোমাদের ভেতরকার খবর তুলে ধরার তো কেউ নেই, কথাটা শুনতেই থমকে যায় চিন্তায় পড়ার মত, তবে সমান্য ক’টা অক্ষরের কথাটা মারাত্মক ভাবনার প্রভাব ফেলে। অার তাই যখন অামাদের মত সাংবাদিকদের ভিতরের খবর তুলে ধরার কেউ নেয়, তখন কিছু-কিছু ক্ষেত্রে এমন সাংবাদিক অাছে যা স্বেচ্ছাচারী হয়ে যায়। গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে চিন্তিত প্রশ্ন? সামান্য ক’টা অক্ষরের লিখা মারাত্মক তির্যক মন্তব্যটি নিয়ে ভাবতে পারেন মিডিয়াকর্মীরা। এদিকে,ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার বাজারে সংবাদ নামক পণ্যটি নিয়ে এখন,রীতিমতো প্রতিযোগিতা চলছে।যা কার অাগে কে সংবাদ সরবরাহ করবেন এ নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটান প্রায় সবাই। একটি টেলিভিশন চ্যানেলের অভ্যন্তরীণ শ্লোগান-সবার অাগে সব খবর।কিন্তু সত্য,অাসল ও সঠিক বাস্তব কথাটি হলো সবার অাগে সঠিক খবর। কিন্তু এসব সংবাদ প্রচারের অাগে সঠিক বিষয়টি যাচাই করে নেওয়া কিংবা সাবাদিকতার পরিভাষায় ক্রস চেক করে নেওয়ার বিষয়টি অামরা প্রত্যেক সাংবাদিক যথার্থভাবে করছি কি? সাংবাদিকতার অভিজ্ঞতার অালোকে বলছি,অামরা যারা সাংবাদিক অাছি প্রায় সবাই নিজেদের ভিতরকার সঙ্গিত কারনে বিভিন্ন কর্মের সাথে অপকর্মের মিল অাংশিক হলেও থেকেই যায়। তবে,প্রকৃতপক্ষে অামাদের সাংবাদিকতার জীবনে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশে দল,মতের বাইরে থেকে নিজেদের ভিতরকার অসঙ্গতি ঝেঁড়ে ফেলে দেশের জন্যে,দেশের জাতির জন্যে,তথা দেশের উন্নতির জন্যে সাংবাদিকতার মত মহান পেশায় নিয়োজিত থাকা।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..