মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন

তারাকান্দায় মেম্বার থেকে লক্ষ টাকার মালিক

সময়ের সংবাদ ডেস্ক
  • Update Time : শনিবার ২৫ এপ্রিল, ২০২০
  • ১১৫ বার পঠিত

সাগর তালুকদার, নিজস্ব প্রতিবেদক, সময়ের সংবাদঃ

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলায় কামারগাঁও ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার রুবেল মিয়ার বিরুদ্ধে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, পঙ্গু ভাতা, মাতৃকালীভাতাসহ খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ১০টাকা কেজি কার্ডে চাল উত্তোলন করে আত্নসাৎ করার গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে , উপজেলার কামারগাঁও ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রুবেল অসহায় ,দরিদ্র ,দুস্থ জনসাধারণের জন্য আসা সরকারের সুযোগ সুবিধা ও বিভিন্ন ভাতার কার্ড করে দেওয়ার কথা বলে ওই ওয়ার্ডের জনসাধারণের কাছ থেকে জনপ্রতিনিধি হওয়ার পর থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে এলাকাবাসীর।

অনুসন্ধ্যানে জানা যায় , রুবেল মিয়া ইউপি সদস্য হওয়ার আগে তিনি চকনাপাড়া বাজারে চা বিক্রেতা ছিলেন ।

ইউপি সদস্য হওয়ার পরেই তিনি লক্ষ লক্ষ টাকার মালিক হয়ে গেছেন।

রাইজান বাজারে ৬ লক্ষ টাকার অধিক মূল্যে জমি ক্রয় করেন জনাব আলীর কাছ থেকে ইউপি সদস্য রুবেল মিয়া। ওই জায়গাতে তিনি ফাউন্ডডেসন করে নির্মাণ করছেন দোকান ঘর ।

চকনাপাড়া বাজারে ২৪শে এপ্রিল বিকালে সরেজমিন গেলে, রুবেল মিয়ার প্রতারণার শিকার শতশত লোক বাজারে উপস্থিত হয়ে টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করেন ।

প্রতারকের আরেক নাম রুবেল মিয়া , টাকা নিয়ে অসহায়দের সর্বশান্ত করেদেন ।

চকনাপারা গ্রামের, গ্রাম পুলিশ সুরেশ এর ছেলে নির্মল পঙ্গু ভাতা করে দিবে বলে প্রথম দাপে ২০০০ টাকা নেয়, কার্ড করে দেওয়ার পরে সরকার থেকে নির্মলের একাউন্টে ১২০০০ হাজার এর অধিক টাকা উত্তোলন করে নেয়, সুরেশ এই টাকা চাইতে গেলে ইউপি সদস্য হুমকি দিয়ে বলে ইউএনও কাছে বলে তর চাকরি খেয়ে ফেলবো ।

চকনাপাড়া গ্রামের আলীম উদ্দিনের (মা) রাভিয়া খাতুন এর কাছ থেকে বিধবা ভাতার কার্ড করে দিবে বলে ৬০০০ টাকা হাতিয়া নেয়।

পুংনায় পাড়ার আব্দুল হামিদ এর ছেলে প্রতিবন্ধি এবাদুল এর কাজ থেকে কার্ড করে দেওয়ার কথা বলে প্রথমে ৮৫০০ টাকা নেয়। কার্ড হয়ে যাওয়ার পরে এবাদুলের একাউন্ট ১২০০০ হাজার এর অধিক টাকা উত্তোলন করে নেয়।

পুংনায় পাড়া মোস্তফার (মা) সুফিয়া খাতুন এর কাজ থেকে বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দিবে বলে ৩০০০ হাজার নেয়, ইউপি সদস্য রুবেল মিয়া।

এ ছাড়াও ১০টাকা কেজির খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর চাল সম্মানী পরিবারে চকনাপাড়া গ্রামের হবিকুল ইসলামের মায়ের নামে ও উনার স্ত্রী নামে কার্ড করে বিগত চার বছর চাল আত্নসাৎ করছেন, যার- কার্ড নাম্বার, ১৫৮৮-১৫৯০।

এ বিষয়ে হবিকুল ইসলাম তারাকান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন । আর এই কার্ড হওয়াতে তিনি সামাজিক ভাবে হেয়প্রতিপন্ন হয়েছেন ।

উল্লেখিত বিষয় নিয়ে ইউপি সদস্য রুবেল মিয়ার সাথে কথা বললে তিনি বলেন, অভিযোগ করে কিছু লাভ নেই, প্রশাসন আমার কিছু করতে পারবে না, ইউএনও কথা বললে এ সময় তিনি উপস্থিত জনতার সামনে বিরুপ মন্তব্য করেন।

পরে রাত্রে ২৪শে এপ্রিল ৭•৫২ মিনিটে ইউপি সদস্য আমার নাম্বারে ফোন করে বলে নিউজটি না করার জন্য এবং আমার বিকাশ নাম্বার দিতে বলেন, মোটা অংকের টাকা দিবে। যে নাম্বার থেকে কল করা হয়েছেঃ ০১৭৩৫৫১০৭৫৪।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..