বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন

ফোন পেয়ে খাদ্য পৌঁছালেন কুতুবদিয়ার ওসি

সময়ের সংবাদ ডেস্ক
  • Update Time : রবিবার ১২ এপ্রিল, ২০২০
  • ৯৪ বার পঠিত

কাইছার সিকদার, নিজস্ব প্রতিবেদক, সময়ের সংবাদ:

প্রবাসে যারা দেশের মায়া ত্যাগ করে রোজগারের জন্য পড়ে থাকেন উদ্দেশ্য শুধু একটাই যেন দেশের মাটিতে স্ত্রী, সন্তান দোবেলা খেয়ে পড়ে স্বাচ্ছন্দ্যে জীবন যাপন করতে পারে৷ কিন্তু পরিস্থিতি সবসময় মানুষের চাহিদার অনুকূলে থাকে না৷ এবার সবকিছু কে ছাপিয়ে গেল নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আতঙ্ক৷

সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সারা দেশে অবরোধ ধারাবাহিকতায় চলে আসছে, প্রভাব শুধু এক জায়গায় পড়েনি, পড়েছে দিন মজুর থেকে শুরু করে সমাজের সব স্থরের মানুষের মাঝে৷ প্রেক্ষাপট ভিন্ন হলে ও কারণ যেন শুধু একটাই, অভুক্ত থাকার অভ্যেস টা যেন ইতি মধ্যে চর্চা করে নিয়েছেন ধনী, গরীব সকলেই৷

প্রবাসীর পরিবার ও বাদ যায়নি, তাই ক্ষুধার জ্বালা সংবরণ করতে না পেরে সুদুর প্রভাস থেকেই ফোন দিয়ে বসলেন এক প্রবাসী কুতুবদিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা – দিদারুল ফেরদৌস এর মুটো ফোনে, ওপাস থেকে আবেদন ছিল তাঁহার অভুক্ত পরিবার যেন খাদ্য সহায়তা পায়৷

এ ব্যাপারে ওসি দিদারুল ফেরদৌস সময়ের সংবাদ কে জানান, গত কয়েকদিন আগে আমার কাছে বিদেশী নাম্বার থেকে একটা ফোন আসে, অপর প্রান্ত থেকে বলছিলেন একজন প্রবাসী, আমার স্ত্রী সন্তান গত কয়দিন ধরে না খেয়ে আছে, আমি নিরুপায় হয়ে আপনাকে ফোন দিয়েছি, দয়া করে তাঁদের সহায়তা করুন।আমি সত্যিই চমকে গেলাম এবং যত দ্রুত সম্ভব ওনার দেওয়া ঠিকানায় খাদ্য সামগ্রী পৌঁছানোর ব্যাবস্থা করলাম৷

সময়ের সংবাদ কে তিনি আরো জানান, কুতুবদিয়ার ভিন্ন ভিন্ন আরো কয়েক জায়গায় এরকম ৪০ টি প্রবাসী পরিবারকে ফোন পেয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছানো হয়েছে এবং চলমান দুর্যোগ শেষ না হওয়া পর্যন্ত এ সহায়তা চালু থাকবে৷

এছাড়া কুতুবদিয়ার হত দরিদ্র পরিবার গুলোর মাঝে তিনি দুর্যোগের শুরু থেকে বিভিন্ন সহায়তা করে আসছেন এবং সংকট শেষ না হওয়া পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি সময়ের সংবাদ কে জানান৷

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..