মঙ্গলবার, ০৫ Jul ২০২২, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন

ঢাকা ফেরৎ গ্রাম মুখী মানুষ মানছেনা হোম কোয়ারেন্টাইন

সময়ের সংবাদ ডেস্ক
  • Update Time : মঙ্গলবার ৩১ মার্চ, ২০২০
  • ১৪৭ বার পঠিত

এম এ করিম, ষ্টাফ রিপোর্টারঃ সময়ের সংবাদ ডট কমঃ

অাতঙ্ক নামোক বিশ্বব্যাপী মারাত্মক মহামারী করোনা ভাইরাসে ঢাকা ফেরৎ গ্রাম মুখী মানুষ মানছেনা হোম কোয়ারেন্টাইন। গেল কিছুদিনে চিনের প্রথম করোনা ভাইরাসের উদ্ভাবিত হয়, পরে ছড়িয়ে পরে প্রায় সকল দেশেই।এতে করে মৃত্যুরূপে মারাত্মক অাকার ধারণ করে তোপের মুখে পরে বাংলাদেশ সহ সব উন্নত দেশ। সাম্প্রতিক চলোমান সময়ে এখন পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩৭ লাখ ৮৪৩ হাজার মানুষ মৃত্যুরূপে পতিত হয়।এছাড়াও এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা অনাক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৭ লাখ ৮৬ হাজার ৯৭৩ জনের শরীরে। এছাড়াও বিশ্বব্যাপী মারাত্মক মহামারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ১ লাখ ৫১ হাজার ৩১২ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন ৫ লাখ ৩৬ হাজার ৬৭৮ জন। এদের মধ্যে ৫ লাখ ৯ হাজার ৮৮৯ জনের অবস্থা স্থিতিশীল এবং ২৬ হাজার ৭৮৯ জনের অবস্থা গুরুতর।

এদিকে দেশে এখন পর্যন্ত ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে ৫১ জনের শরীরে। এদের মধ্যে মারা গেছেন পাঁচজন এবং সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ১৯ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৫ জন। অপর দিগে এক চিনা নাগরিকের কর্তব্যরত চিকিৎসাধীন নার্সের অাবেগ ঘন জনসচেতনতা মূলক স্টাটাসে বলা হয়,বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস কতটা যে মারাত্মক তা জানলে দরজা নয় ঘরের জানালা পর্যন্ত বন্ধ করে রাখতেন। সুস্থ মস্তিষ্কে বহির বিশ্বের দিগে তাকাই দেখলে বুঝা যায় প্রাণঘাতী করোনায় বিশ্ব জুড়ে বাড়ছে শুধু মৃত্যুর মিছিল।

এতকিছুর পরেও মানছেনা ঢাকা ফেরৎ গ্রাম মুখী মানুষ হোম কোয়ারেন্টাইন। অথচ আইইডিসিআর,স্বাস্থ্য অধিদপ্তর,থেকে বলা হয়েছে ঢাকা ফেরৎ সকলকেই হোম কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক। সরকারিভাবে করোনা ভাইরাস রোধের সংক্রমিত নিয়ন্ত্রণে যে বিধিনিষেধ দেওয়া হয়েছে তা উপেক্ষা করে চলছে অাড্ডা অাসর বা মিলনমেলা। করোনা ভাইরাসে ছুটি হওয়ায় ঢাকায় বিভিন্ন ব্যাংক, বীমা,এনজিও,কোম্পানী সহ দৈনন্দিন কাজের শ্রমিক কর্মীরা ঢাকা ছেড়ে গ্রামে তাদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। এতে করে করোনা ভাইরাস রোধের নির্দেশনা না মেনে এলোমেলো ভাবে উুঁকিয়ে বেড়াচ্ছে নিজ এলাকায় প্রায় সব জাইগায়।

গ্রামের স্থানীয় বাজার গুলোতে দেখা যায় অপ্রয়োজনীয় ক্রেতা বিক্রেতা সহ সাধারণ মানুষ সামাজিক দূরুত্ব বজায় না রেখে করোনা রোধের নির্দেশনা অমান্য করে চলছে গলায়গলায়,যেন দেখে মনে হয় এটা এক মিলোন মেলা। গেল বেশ কয়েক দিন থেকে স্থানীয় গ্রামের বাজার গুলোতেও বাড়ানো হয়েছে প্রশাসনিক তৎপোরতা। তবে প্রশাসনের অগোচরে দিব্বি চালিয়ে যাচ্ছে লকডাউন থাকা দোকান গুলো। এছাড়াও সন্ধ্যার পর সকল প্রকার দোকান পাট বন্ধ থাকার রুলজারি থাকলেও সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করে প্রশাসনের কর্মতৎপরতার পরপরই স্থানীয় বাজার গুলোই যেন দেখা মিলে করোনার অাসার পূর্বেকার চিত্র।

এদিকে,অাজ প্রধানমন্ত্রী এক ভিডিও কনফারেন্স এ বিশ্বব্যাপী মারাত্মক মহামারী প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমিত কমিয়ে অানতে জনসচেতনতায় কথা বলেন, সেখানে তিনি জনসাধারণ কে উদ্দ্যোশ্য করে বলেন,নিজে তথা সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে অপ্রয়োজনে ঘরের বাহিরে না যাওয়ার নিষেধাজ্ঞা দেন। এদিকে,প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের কারনে বিপাকে পরেছে দৈনন্দিন শ্রমজীবী মানুষ।এছাড়াও সামনের দিনগুলো অারোও অাতঙ্ক বলে দিশাহারা হয়ে দিন গুনতে হচ্ছে দৈনন্দিন খেটে খাওয়া মানুষ গুলোকে।

Please follow and like us:

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..